জন্ম মাস কিংবা রাশিফল নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি নেই..তাদের জন্ম জুলাই মাসে

যারা এই আর্টিকেল পড়ার জন্যে এসেছেন ধরেই নেয়া যায় তাদের জন্ম জুলাই মাসে। জন্ম মাস কিংবা রাশিফল নিয়ে মানুষের আগ্রহের কমতি নেই। বৈজ্ঞানিক ভিত্তি আছে কি নেই তা নিয়ে আলোচনা এখানে নাই বা হোক। এসব নিয়ে যারা ঘাঁটাঘাটি করেন সেই বিশেষজ্ঞদের চিন্তা-মতামত তুলে ধরা হলো এখানে। এখানকার সবকিছুই গবেষণালব্ধ ফলাফল।

বলা হয়, জুলাই মাসে জন্মগ্রহণকারীরা ভীড়ের মধ্যে নিজেদের অনন্য করে তুলে ধরার বৈশিষ্ট্য নিয়েই পৃথিবীতে আসেন। একেবারে নিজস্ব লেন্সের মধ্য দিয়ে জীবনটাকে দেখেন তারা। ব্যক্তিত্বের বৈশিষ্ট্য সবার নজর কাড়ে। এখানে তাদের সম্পর্কে কিছু চমকপ্রদ তথ্য জেনে নিন।

ব্যাপক আশাবাদী 
জুলাইয়ে জন্ম নেয়া মানুষগুলো সবকিছুর উজ্জ্বল দিকের দিকেই নজর দেন। হাজারো কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে থেকেও তাদের মুখে আশ্বাসের হাসি থাকে। গবেষণায় বলা হয়, গ্লাসের অর্ধেকটা ভরা দেখতেই পছন্দ করেন তারা। যেকোনো বিষয়ে চরম আশাবাদী থাকেন তারা।

বিখ্যাত ব্যক্তিদের তালিকায় তারা 
রোমান সম্রাট জুলিয়াস সিজারের জন্ম ১২ বা ১৩ জুলাইয়ে। এ মাসে জন্মগ্রহণকারীদের বিশাল তালিকার একজন তিনি। তালিকার মধ্যে রয়েছেন নেলসন ম্যান্ডেলা, প্রিন্সেস ডায়ানা, মার্কিন প্রেসিডেন্ট জন কুইঞ্চি অ্যাডামস, ক্যালভিন কলিজ, গেরাল্ড ফোর্ডসহ অনেকেই আছেন।

আবেগ বিষয়ে 
জাপানের এক গবেষণায় বলা হয়, যারা বসন্ত এবং গ্রীষ্মে জন্ম নেন তারা সুস্থির হয়ে থাকেন। প্রকৃতি তাদের আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে। যেকোনো পরিস্থিতিতে তারা নেতৃত্বের স্থান দখল করতে পারেন। তারা ভবিষ্যত পরিকল্পনা তৈরি করতে ওস্তাদ।

উচ্চশিক্ষা 
এক ব্রিটিশ গবেষণায় বলা হয়, জুলাইয়ে জন্মগ্রহণকারীরা উচ্চশিক্ষা নিতে পছন্দ করেন। গবেষকরাও বিষয়টি যৌক্তিক বলে মনে করেন। এ মাসে যারা জন্ম নেয় তারা ক্লাসের সবচেয়ে কম বয়সী হয়ে থাকে। কাজেই লেখাপড়ার প্রতি তাদের আগ্রহ এবং শ্রম অনেক বেশি থাকে।

তারা দীর্ঘকায় হয়ে থাকেন
এ মাসে যারা জন্ম নেন তাদের গড় উচ্চতা বেশি হয় বলে দেখেছেন বিশেষজ্ঞরা। এর সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ খুঁজে পাননি তারা।

বাঁহাতি হয়ে থাকেন 
গবেষকরা জানান, মার্চ এবং জুলাইয়ের মধ্যে যাদের জন্ম, তাদের মধ্যে বাঁহাতি হওয়ার প্রবণতা বেশি লক্ষ্য করা যায়। আর আগস্ট থেকে ফেব্রুয়ারির মধ্যে জন্ম নেয়ারা ডানহাতি হয়ে থাকেন।
সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

image_printপ্রিন্ট

শেয়ার

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।