দীর্ঘ ৬ বছর পর আবারও চালু হয়েছে জাতীয় জাদুঘরের বাদ্যযন্ত্র গ্যালারি

দীর্ঘ ৬ বছর পর আবারও চালু হয়েছে জাতীয় জাদুঘরের বাদ্যযন্ত্র গ্যালারি। সংস্কার এবং নতুন করে সাজসজ্জা শেষে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মাধ্যমে দর্শণার্থীদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে।

গ্যালারির চারপাশে শোকেসে সাজানো রয়েছে চার ধরনের মোট ১৩৩টি বাদ্যযন্ত্র। ১৯৭০ সালে সংগ্রহ করা বাদ্যযন্ত্র থেকে শুরু করে সাম্প্রতিক সময়েরও বাদ্যযন্ত্র রয়েছে। একতারা, দোতারা, ঢাক, ঢোল, কাড়া, মৃদঙ্গ, মন্দিরা, ডমরু, কাঁসর, করতাল, বীণা, বাঁশি, ঘণ্টি, সেতার, তানপুরা, সরোদ, সারেঙ্গি, এসরাজ থেকে শুরু করে রয়েছে হারমোনিয়াম, একোর্ডিয়ান, বেহালা, গিটার, বিউগলসহ নানা দেশে নানা যুগের বাদ্যযন্ত্র।

গ্যালারিতে চার ধরনের বাদ্যযন্ত্রের মধ্যে রয়েছে বায়ুর দ্বারা অনুরণন তৈরির বাদ্যযন্ত্র ‘শুষির’, চর্মাচ্ছাদিত এবং চামড়ার আঘাতে হওয়া ‘আনন্ধ যন্ত্র’, প্রাণিজ তন্তু সুতা বা ধাতব দিয়ে তৈরি ‘ততযন্ত্র’ এবং ধাতু নির্মিত যন্ত্র আঘাত যোগে বাজানো ‘ঘন যন্ত্র’।

কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে জাতীয় জাদুঘরের মহাপরিচালক ফয়জুল লতিফ চৌধুরী শনিবার গ্যালারিটির উদ্বোধন ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, গত ৬ বছরে গুরুত্বপূর্ণ নিদর্শন দর্শক দেখতে পারেনি মূলত সংস্কারকাজের জন্য। ছয় বছর পর বাদ্যযন্ত্র গ্যালারিটি জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত। এখন থেকে গ্যালারি দর্শকের জন্য খোলা থাকবে।

শাহবাগের জাতীয় জাদুঘরের তৃতীয় তলার ২৮ নম্বর গ্যালারিটি বাদ্যযন্ত্রের গ্যালারি। টিকিট কেটে যে কেউ এটি দেখতে যেতে পারেন। সপ্তাহের একদিন বৃহস্পতিবার ছাড়া বাকি সব দিন এই সংগ্রহশালা সাধারণ মানুষের জন্য উন্মুক্ত থাকে। গ্রীষ্ম, শীত ও রমজান মাস পরিদর্শনের সময়সূচিতে তিন ভাগে বিভক্ত করা হয়েছে।

রমজান মাসের সময়সূচি : শনিবার-বুধ সকাল ৯.৩০টা থেকে বিকেল ৩.০০টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

গ্রীষ্মকালীন (এপ্রিল-সেপ্টেম্বর) : শনিবার-বুধ সকাল সাড়ে ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত এবং শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

শীতকালীন (অক্টোবর থেকে মার্চ) : শনিবার-বুধ সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এবং শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে।

image_printপ্রিন্ট

শেয়ার

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।